এ১ জ্বালানি পাওয়া যাবে মানব বর্জ্য থেকে

Posted by

প্রযুক্তি প্রতিদিন : এরোপ্লেনে ব্যবহারের জন্য নতুন এক ধরনের জীবাশ্মমুক্ত জ্বালানি বানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি স্টার্টআপ কোম্পানি। আর এটি তৈরি হয় মানব বর্জ্য থেকে।এ জ্বালানি বানাতে ‘ক্র্যানফিল্ড ইউনিভার্সিটি’র গবেষকদের সঙ্গে কাজ করেছে ‘ফায়ারফ্লাই গ্রিন ফুয়েলস’ নামের কোম্পানিটি। বিবিসি’র প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ যৌথ উদ্যোগে কোম্পানির লক্ষ্য ছিল, এরোপ্লেনে প্রচলিত জ্বালানির তুলনায় এতে যেন কার্বন নিঃসরণের মাত্রা ৯০ শতাংশ কমে আসে, তা নিশ্চিত করা।স্বাধীন নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ফায়ারফ্লাই গ্রিন ফুয়েলস যা বানিয়েছে, তার মান ‘স্ট্যান্ডার্ড এ১’ বিমান জ্বালানির কাছাকাছি। ২০২১ সালে যুক্তরাজ্যের পরিবহন বিভাগ থেকে ২৫ লাখ ডলারের বেশি আর্থিক অনুদান পেয়েছে কোম্পানিটি। এখনও বাণিজ্যিক পর্যায়ে না এলেও কোম্পানি বলছে, বৈশ্বিক বাজারে জ্বালানিটি আনার প্রস্তুতি চলছে ও পাঁচ বছরের মধ্যে তাদের প্রথম বাণিজ্যিক কারখানা পুরোদমে চালু হবে। এ ছাড়া, এয়ারলাইন কোম্পানি ‘উইজ এয়ার’-এর সঙ্গে এরইমধ্যে চুক্তি করেছে ফায়ারফ্লাই। ২০২৮ সাল নাগাদ তাদের এরোপ্লেনে নতুন উদ্ভাবিত এই জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্য নিয়েছে কোম্পানি দুটি।বর্তমানে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন পানি শোধনাগার থেকে বর্জ্য সংগ্রহ করে থাকে কোম্পানিটি, যেগুলো ‘হাইড্রোথার্মাল লিকুইফ্যাকশন’ নামে পরিচিত এক প্রক্রিয়ায় পরিশোধিত হয়ে থাকে। পরবর্তীতে, সেই তরল বর্জ্যকে কাদা বা অপরিশোধিত তেলে রূপান্তর করা হয়। আর এ প্রক্রিয়ায় পাওয়া কঠিন অবশিষ্টাংশকে জৈব সারেও রূপান্তর করা সম্ভব। কোম্পানিটি আরও বলছে, প্রচলিত প্রক্রিয়ায় গাড়ি ও প্লেনের জন্য জীবাশ্ম জ্বালানি বানাতে প্রকৃতির লাখ লাখ বছর লেগে যায়। তবে, ফায়ারফ্লাইয়ের এ প্রক্রিয়ায় কয়েক দিনের মধ্যেই জ্বালানি তৈরি করা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*