রাহুল গাঁধীর নেতৃত্বে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’

Posted by

বিশ্ব প্রতিদিন: দক্ষিণ থেকে উত্তরের পরে পশ্চিম থেকে পূর্ব। সব পরিকল্পনামাফিক এগোলে আগামী বছর বাংলাতেও ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’য় দেখা যেতে পারে রাহুল গান্ধীকে। এ বারের ‘ভারত জোড়ো’র পরবর্তী পর্ব হিসেবে তখন পশ্চিম থেকে পূর্বে পদযাত্রায় বেরোবে রাহুলের কংগ্রেস।রাহুলের নেতৃত্বে এখন দক্ষিণের কন্যাকুমারী থেকে উত্তরে কাশ্মীর অভিমুখে চলছে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’। যা চলবে পাঁচ মাস ধরে। এই যাত্রাপথের কারণেই পূর্ব এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে মূল পদযাত্রা নিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আগামী বছর পশ্চিমে গুজরাত থেকে উত্তর-পূর্বে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত আরও একটি পদযাত্রার পরিকল্পনা হচ্ছে। তার অঙ্গ হিসেবে ওড়িশা, বাংলা বা অসমে আসবেন রাহুল। কলকাতায় এসে শনিবার এই পরিকল্পনার কথা জানিয়ে গেলেন ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’র সমন্বয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই এআইসিসি নেতা জয়রাম রমেশ ও দিগ্বিজয় সিংহ।যে সব রাজ্যে এখন রাহুল যাচ্ছেন না, সেখানে আলাদা পদযাত্রাও হচ্ছে। বাংলায় সেই পদযাত্রার কর্মসূচি চূড়ান্ত হবে ২০ সেপ্টেম্বর। বাংলার পদযাত্রা সেরে তার কোনও স্মারক নিয়ে বা পৃথক ভাবে শ’খানেক কংগ্রেস কর্মী রাহুলের মূল পদযাত্রায় অংশগ্রহণ করবেন। এ রাজ্যের যাত্রায় অংশগ্রহণের জন্য প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরাকে অনুরোধ করা হবে বলেও জানিয়েছেন রমেশ।বিধান ভবনে এ দিন ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’ নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন রমেশ ও দিগ্বিজয়। বৈঠকে ছিলেন প্রদীপ ভট্টাচার্য, নেপাল মাহাতো, অসিত মিত্র, শুভঙ্কর সরকার, আশুতোষ চট্টোপাধ্যায়েরা। বাংলার পদযাত্রা পাহাড় থেকে সাগরের দিকে হবে, না দক্ষিণ থেকে উপরে উঠবে, তা প্রদেশ নেতৃত্বকেই ঠিক করতে বলেছেন এআইসিসি-র নেতারা। সূত্রের খবর, বৈঠকে বর্ষীয়ান নেতা দিগ্বিজয় পরামর্শ দিয়েছেন, এই যাত্রাকে উপলক্ষ করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাধারণ জনজীবনের সমস্যা নিয়ে মানুষের সঙ্গে কথা বলুন কংগ্রেসের কর্মীরা। নেতারা নিজেদের মতো আলাদা যাত্রা করে নিলে হবে না, রাজ্য স্তরে দলের একটি কেন্দ্রীয় পদযাত্রার কথাও বঙ্গের নেতৃত্বকে বলেছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*