একজন জ্ঞান পাপীর শাস্তি

Posted by

নিজস্ব প্রতিবেদক: গবেষণা জালিয়াতির অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের শিক্ষক আবুল কালাম লুৎফুল কবীরের পিএইচডি ডিগ্রি বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে সহযোগী অধ্যাপক থেকে সহকারী অধ্যাপকে পদাবনতি করা হয়েছে।মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) সন্ধ্যায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিন্ডিকেট সদস্য বলেন, থিসিস জালিয়াতি করায় লুৎফুল কবিরের পিএইচডি ডিগ্রি বাতিল করার সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেছে সিন্ডিকেট।তিনি জানান, ২০১৪ সালের ‘টিউবারকিউলোসিস অ্যান্ড এইচআইভি কো-রিলেশন অ্যান্ড কো-ইনফেকশন ইন বাংলাদেশ: অ্যান এক্সপ্লোরেশন অব দেয়ার ইমপ্যাক্টস অন পাবলিক হেলথ’ শীর্ষক পিএইচডি গবেষণা শুরু করেন লুৎফুল কবির।তবে ২০২০ সালের ২৫ জানুয়ারি একটি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে তার বিরুদ্ধে গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির অভিযোগ আনা হয়। ওই বছরের ফেব্রুয়ারিতে সিন্ডিকেট সভায় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও শিক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির পাশাপাশি অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়। পরে ২০২১ সালের ২৮ অক্টোবর শাস্তি দিতে একটি ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়।লুৎফুল কবির বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টরের দায়িত্বও পালন করেছেন। সিন্ডিকেট সদস্য এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে বলেন, পিএইচডি থিসিস জালিয়াতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সিন্ডিকেট সভায় লুৎফুল কবীরের ডিগ্রি বাতিল ও পদাবনতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*