বাংলাদেশ দলে শীর্ষ তারকা যারা

Posted by

খেলার সময়: নারী ক্রিকেটের ওয়ানডে ফরম্যাটের দ্বাদশ বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে।ওয়ানডে ফরম্যাটে নারীদের বিশ্বকাপে এই প্রথমবার খেলছে বাংলাদেশ।নিউজিল্যান্ডের মাটিতেও বাংলাদেশের নারী জাতীয় ক্রিকেট দল এর আগে কখনো ক্রিকেট খেলতে সফর করেনি।বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট অনুসরণ করেন ফারিয়া উলফাত সৈয়দ, বিবিসি বাংলাকে তিনি বলেন, বাংলাদেশ যাতে অন্তত দুটি ম্যাচ জেতে এই প্রত্যাশা রাখেন তিনি।বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমানে ধারাভাষ্যকার সাথিরা জাকির জেসিও আশাবাদী।”অনেকে যেমনটা বলছে এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের নারী দল অংশগ্রহনই বড় ব্যাপার, আমার কাছে তেমনটা মনে হচ্ছে না।”তার মতে, পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রস্তুতি ম্যাচে যেমন খেলেছে তেমন খেললেও জয় পাওয়া মুশকিল হবে না টুর্নামেন্টে।

বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলের জাহানারা আলম, সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদরা দীর্ঘদিন একসাথে খেলছেন।তাই এই ক্রিকেটারদের দিকে নজর থাকবে একই সাথে তরুণ ক্রিকেটাররাও এবারে বড় ভূমিকা পালন করতে পারেন বলছেন নারী ক্রিকেট দলটির নিয়মিত পর্যবেক্ষক সাজ্জাদ খান।তিনি মনে করেন, “প্রথম বিশ্বকাপ, তাই বাংলাদশের মেয়েদের ওপর চাপটা কম।”তিনিও বলেছেন, অন্তত পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয় পাওয়াটা উচিত।৫০ ওভারের খেলায় বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে সবশেষ চার ম্যাচের তিনটিতে জিতেছে।সাজ্জাদ খান মনে করেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের নিয়মিত খেলার অভিজ্ঞতা আছে এটাও দলটিকে বাড়তি প্রেরণা জোগাবে।ব্যাটিংয়ে- মুর্শিদা খাতুন, ফারজানা হক পিংকি, শারমিন সুপ্তা, নিগার সুলতানা জ্যোতিরা আছেন।রুমানাও বাংলাদেশের টপ ব্যাটারদের একজন। আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে রুমানা বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান তুলেছেন রুমানা আহমেদ।আর ১০৭ রান করলে রুমানা বাংলাদেশের হয়ে প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে ১ হাজার রানের মালিক হবেন।ফারজানা হক পিংকি সর্বোচ্চ অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন- সাতটি।তবে স্ট্রাইক রেটের দিক থেকে বিশ্ব মানদন্ডে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা অনেক পিছিয়ে।অলরাউন্ডার হিসেবে আছেন রুমানা, তিনি একই সাথে ওয়ানডে ফরম্যাটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এবং উইকেট শিকারী।

এছাড়া বোলিংয়ে আছেন জাহানারা আলম যিনি ৩৮টি ওয়ানডে উইকেটের মালিক ও সালমা খাতুন নিয়েছেন ৪১টি উইকেট।তবে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ- এই পাঁচটি দলকে ‘প্রবল প্রতিপক্ষ’ বলছেন তিনি।কারণ অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এর আগে কখনোই ওয়ানডে ক্রিকেট খেলেনি বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দল।তবে নিজের বিশ্লেষণে সাজ্জাদ খান উদাহরণ হিসেবে টেনেছেন ১৯৯৯ সালের পুরুষদের ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাংলাদেশের কথা, সেবার পাকিস্তানের মতো দলকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ, এমন কিছু বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলও করতে পারে বলছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*