ঢাকার ব্যবসায়ী বিল্লাকে হত্যা মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টা প্রতিবাদে সাংবাদ সম্মেলন

Posted by

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : ঢাকায় বসবাসকারী ব্যবসায়ী মো: হুমায়ুন কবির খান বিল্লালকে একটি হত্যা মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টা, সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। ব্যবসায়ী মো: হুমায়ুন কবির খান বিল্লালের স্ত্রী ফারহানা কবির গোপালগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে ফারহানা কবির বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের  মুকসুদপুর উপজেলার ভাকুড়ী গ্রামে। ব্যবসায়ীক কারনে আমারা পরিবারসহ ১৬ বছর ধরে ঢাকায় বসবাস করি। গ্রামের বাড়ি আমরা তেমন আসি না, আমার শাশুরী মাঝে মাঝে গ্রামের বাড়িতে এসে থাকেন। আমার স্বামীর বংসের চাচা আলী খান ও তার ছেলেরা রিপন খান, সুমন খান, মারুফ খান ও রাজিব খান এলাকার লাঠিয়াল, সন্ত্রাসী ও বেয়াদর প্রকৃতির লোক। আমার স্বামীর কোন ভাইবোন নেই এবং আমার স্বামীর জন্মের ৯দিন আগেই আমার শ্বশুর মারা যান। আমরা ঢাকায় থাকার কারনে প্রতিবেশী লাঠিয়াল বাহিনি আমার স্বামীর পৈতৃক ও ক্রয়কৃত সম্পত্তি অবৈধভাবে ভোগদখল করার উদ্দেশ্যে পায়তারা করতে থাকে। বিগত বছর আমাদের জায়গায় একটি এগ্রো ফার্ম করতে গেলে তারা বাধা দেয়ার খবর পেয়ে আমার স্বামী বাড়িতে আসে।  বাধা দেওয়ার বিষয়ে শুনতে গেলে স্বামীসহ পরিবারের সবাইকে ভয়ভিতি ও প্রান নাশের হুমকি দেয়। এক পর্যায় আমরা পুনরায় ঢাকায় ফিরে যাই। গত ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর বালু কাটার জের ধরে ভাকুড়া গ্রামে রুহুল শেখকে মারপিট করে একই গ্রামের আলি খান গংরা। এ ঘটনার জের ধরে ৩০ অক্টোবর দুই গ্রæপের  মধ্যে সংর্ঘষ হয় এবং সংর্ঘষে সুমন খান নিহত হয়। ঘটনার পর পরিকল্পিতভাবে আমাদের বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে। আমার স্বামী হুমায়ুন কবির খান বিল্লাল ঘটনার সাথে এবং ঘটনাস্থলে না থাকার সত্বেও সুমন হত্যাকান্ডের প্রধান অসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে বংসের চাচাতো ভাই রুহুল আমিন খান রিপন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মুকসুদপুর থানার ওসি (তদন্ত) খন্দকার আমিনুর রহমান দীর্ঘ তদন্ত শেষে আমার স্বামী সুমন হত্যাকান্ডে সম্পৃক্তা না থাকায় অভিযোগপত্র থেকে তাকে অব্যাহুতি দেন। কিন্তু সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে আমার স্বামীকে হয়রানী করার চেষ্টা করছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং সাংবাদিকদের প্রকৃত ঘটনা তুলে ধরার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*