অবরুদ্ধ স্কুল শিক্ষককে উদ্ধার করলেন ইউএনও

Posted by

কালিদাস রায়, নাটোর: নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মামুদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবুল বাশার। উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নের উদবাড়িয়া গ্রামে বাস কেেরন তিনি। গত১৭ এপ্রিল তার প্রতিবেশী মজিবর ও তার ছেলে মুস্তা হঠাৎ করেই আবুল বাশারের বাড়ী থেকে বের হওয়ার চলাচলের রাস্তাটি বাশের বেড়া দিয়ে আটকে দেন। প্রাণ নাশের ভয় থাকায় ওই শিক্ষক এতদিন বাড়ী থেকে ওই রাস্তায় চলাচল করতে পারছিলেন না। বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে নজরে আসার পর সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরুদ্ধ দশা থেকে ওই শিক্ষককে মুক্ত কনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামল হোসেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আাইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ারর আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।ভুক্তভোগী শিক্ষক আবুল বাশার জানান, গত ১৭ এপ্রিল প্রতিবেশী মজিবর ও তার ছেলে মুস্তা চলাচলের একামাত্র রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়। তিনি অভিযোগ করেন, এসময় বেড়া টপকে রাস্তা চলাচল করলে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয় প্রভাবশালী মজিবর এবং তার ছেলে। এতে প্রাণ ভয়ে তিনি ওই পথ দিয়ে চলাচল করতে পারছিলেন না। এদিকে মজিবর প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে থানায় অভিযোগ করতে সাহস পাননি শিক্ষক আবুল বাশার। পরে বিষয়টি নজরে আসার পর সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গিয়ে ওই শিক্ষককে অবরোধমুক্ত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তমাল হোসেন। এই ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান ওই শিক্ষক।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তমাল হোসেন জানান, গণমাধ্যমে সংবাদ দেখার পরেই তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরুদ্ধ শিক্ষক ও তার পরিবারকে উদ্ধার করি। এখন থেকে তারা স্বাভাবিক জীবন-যাপন করবেন। এছাড়াও অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও গুরুদাসপুর থানা পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*